-এলেবেলে কথন-

নারীরা সব হাবিয়া দোযখে গেলে বেহেশতের মেওয়া আপনার বেশিদিন ভালো লাগবে না,আপনিও তখন দোযখে উঁকিঝুঁকি মারবেন,নারীকেও সৃষ্টি করা হয়েছে ভালোবসেই,বুঝেনন না কেন ভাই?
-এলেবেলে কথন-


আপনি যতটানা ভালোবাসেন নারীকে তার চেয়ে বেশি ভালোবাসেন আল্লাহ্পাক,বুঝলেন ভাই?

-এলেবেলে কথন-

বাঁচিয়ে রেখেছেন আল্লাহ্পাক,আমি সুখে থাকলে ভাইদের এতো ভুতে কিলায় কেন?
-এলেবেলে কথন-

“বিশ্ববিদ্যালয়, লাইব্রেরি,আইন-আদালত,ইতিহাস সবই বিলুপ্ত হবে যদি মানুষ বাঁচতে না পারে”
-এলেবেলে কথন-

“ইসলাম হিংসা ছড়ায় না, ইসলাম ওয়াজে নারীর গীবত করে না,ইসলাম হলো শান্তি”
-এলেবেলে কথন-

আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে সন্মান লাভ করা বাঙালি বিজ্ঞানীর কী অসীম ঘৃণা সেইসব লোকগুলোর প্রতি যারা ক্যানসার সারাবার লক্ষ্যে কাদা পুকুরে ডুব দেন।তাঁর বুদ্ধিদীপ্ত বিচারে এরা অশিক্ষিত ও কুসংস্কারাগ্রস্ত।এই বিজ্ঞাানি নিজের ছেলের বিয়ের সময় কি ঝামেলায় না পড়েছিলেন-কুষ্ঠি মেলাতে গিয়ে।এত কাটখড় পুড়িয়ে কুষ্ঠি মিলিয়ে বিয়ে দিয়েও সেই বিয়ে এক বছরও টেকেনি।তিনি নিজেকে একেবারেই কুসংস্কারাগ্রস্ত বলে মনে করেন না
-এলেবেলে কথন-
“বাংলা ভাষায় এ যাবত আবিষ্কৃত সর্বপ্রাচীন যে লিখিতরূপ-চর্যাপদ,তার সবগুলিই গান।তাই স্পষ্ট করেই বলা যায়,বাংলা গানের যেদিন জন্ম বাংলা সাহিত্যের জন্মও সেদিন”
-এলেবেলে কথন-
“কালিক বৈনাশিকতার চাপে মানবিক সত্তা হারিয়ে ফেলে যখন মানুষ তখন সে হয়ে উঠে “না” মানুষ”
-এলেবেলে কথন-
অনুপ্রাস কেবল শব্দের প্রান্তে মিল না হয়ে শব্দের শুরুতে একই অক্ষর বা বর্ণ দিয়ে সৃষ্টি হতে পারে,যেমন-“কোমল কবিতা কখনো কানে কানে কথা কয়” সবগুলি শব্দ ক বর্ণ।
-এলেনেলে কথন-

ভাস্কর্য যে একটি দেশের ইতিহাসের ভিজুয়ালাইজার এটাতো আপনারা শেখান নাই,আপনারা শিখিয়েছেন ছবি তোলা, সিনেমা দেখা আর ইন্টার্নেটের যত হাবিজাবি
-এলেবেলে কথন-

আমি নিজেকে একজন প্রাবন্ধিক, উপন্যাসিক কিংবা কবি হিসেবে কখনও ভাবতে পারি না। যখনই কোন লেখার কথা মনে আসে সহসাই মনে পড়ে চার দেয়ালের মাঝে বদ্ধ একটি ঘরে শব্দের জ্বাল বুনে যাচ্ছি। লিখতে লিখতে কখনও বা চা কফি খেতে ইচ্ছে করে কিংবা গান শুনতে। মাঝে মাঝে বিছানা থেকে উঠে বাইরে তাকাই। বিছানা বলছি কারন বিছানায় উপুড় হয়ে লেখাটা আমার বদভ্যাস। মাঝে মধ্যে বারান্দায় দাঁড়িয়ে হকারদের হাঁক ডাক শুনতে থাকি। কিংবা কোন শিশুর চিৎকার। লেখা হচ্ছে ভেতরের ঐ দৃষ্টিকে শব্দে রুপ দেয়া। নিজের মনোজগতে ডুব দেয়ার মতো এরকম সুন্দর পন্থা আর আছে কিনা আমি জানিনা।
-এলেবেলে কথন-

Leave a Reply

Quick Navigation
Facebook32
YouTube379
×
×

Cart